আটলান্টার অলিম্পিক পার্কে রথযাত্রার বর্ণাঢ্য আয়োজন হচ্ছে

0
38

আগামী ১,২ ও ৩ জুন তিনদিন ব্যাপী হিন্দু ধর্মালম্বী ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি ফর কৃষ্ণ কনসাসনেসের আয়োজনে আটলান্টায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রথ ও পানিহাতি উৎসব।

এ উপলক্ষে ১২৮৭ সাউথ পন্স ডি লিয়ন এভেনিউএর হরে কৃষ্ণ মন্দিরে তিন দিনের বিরতিহীন কর্মসূচী গ্রহন করা হয়েছে।

১ জুন সন্ধ্যে ৬ টায় গুয়ারা আরতির মাধ্যমে উৎসবের আনুষ্ঠানিক শুভারম্ভের পর অভিবাস ভাষণ রাখবেন এইচ এইচ ভক্তি চারু স্বামী এবং স্রোতা কীর্তি প্রভু। এরপর অভিবাস উৎসবের পর প্রাসাদ বিতরণের মধ্য দিয়ে প্রথম দিনের সমাপ্তি ঘটবে।

২ জুন ভোর সারে চারটা থেকে মঙ্গল আরতির মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়ে বেলা সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত কয়েকটি পর্বে জাপা সেশন, গুরু পূজা, ভগবতম শীর্ষক আলোচনা, দর্শন আরতিসহ সকালের নাস্তা এবং মধ্যাহ্ন ১২ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত সময়ে বর্ণাঢ্য রথযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে আটলান্টার ডাউন টাউনস্থ সেন্টেনিয়াল অলিম্পিক পার্কে।

আয়োজকদের পক্ষ থেকে শ্বেতা স্বরূপ জানিয়েছেন, “মন্দির থেকে আগত অতিথি ও সদস্যগণ একযোগে জাঁকজমকপূর্ণ এই রথযাত্রার শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করবেন এবং সেসময় এই শোভাযাত্রাটি ডাউন টাউনের মেরিয়েটা ও পীচট্রি স্ট্রীট থেকে শুরু হয়ে সেন্টিনিয়াল অলিম্পিক পার্কের চারদিকে প্রদক্ষিণ করবে। পরে সকলে মিলে আবারও হরে কৃষ্ণ মন্দিরে ফিরে গিয়ে মধ্যাহ্ন ভোজে মিলিত হবেন”।

আটলান্টা হরে কৃষ্ণ মন্দিরের কর্মকর্তা শ্বেতা স্বরূপের হাতে ৪ হাজার ডলারের চেক হস্তান্তর করছেন এমএন্ডজে ফাউন্ডেশনের সংগঠক হেমা বড়ুয়া।

শ্বেতা জানান ওই একই দিন সন্ধ্যে ছয়টায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও শেষ পর্বে নৈশ ভোজের মাধ্যমে দ্বিতীয় দিনের সমাপ্তি ঘটবে।

আয়োজনের শেষ দিনে ভোর সারে চারটা থেকে অনুষ্ঠান শুরু হয়ে সন্ধ্যে সাড়ে ছয়টায় প্রাসাদ বিতরণের মধ্য দিয়ে শেষ হবে বলে জানানো হয়েছে। ওইদিন বিভিন আয়োজনের মধ্যে মন্দিরের চারদিকে প্রভু প্রদা পরিক্রমা, পানিহাতি আরতি, কীর্তনসহ বেশ কয়েকটি পর্ব থাকবে বলে জানান আয়োজক গোষ্ঠী।

সমগ্র আয়োজনটির অন্যতম স্পনসর হিসেবে পাশে দাঁড়িয়েছে আটলান্টার নন প্রফিট সংগঠন এমএন্ডজে ফাউন্ডেশন। গত সপ্তাহে উক্ত মন্দিরে আয়োজকদের সাথে এক সৌজন্য সাক্ষাৎকার শেষে এমএন্ডজে ফাউন্ডেশনের সভাপতি জামিল ইমরান অনুষ্ঠানটির সার্বিক সফলতা কামনা করেছেন। এসময় এমএন্ডজে ফাউন্ডেশনের সংগঠক হেমা বড়ুয়া সংগঠনের পক্ষ থেকে ৪ হাজার ডলারের চেক শ্বেতার কাছে হস্তান্তর করেন।

LEAVE A REPLY