‘আমার বেঁচে থাকাই তো অলৌকিক ব্যাপার’

19

মুম্বাইয়ে ওভারব্রিজ ধসের মর্মান্তিক খবর দিয়ে তাঁর সকাল শুরু। তখনো জানতেন না সামনে কী অপেক্ষা করছে। মুম্বাইয়ের চেয়েও মর্মান্তিক ঘটনা ঘটবে তাঁরই চোখের সামনে! এবং সময়ের একটু হেরফের হলে হয়তো শিকার হতে পারতেন তিনি নিজেও। শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখরের ভাষায়, ‘আমার বেঁচে থাকাই তো অলৌকিক ব্যাপার।’

শ্রীনিবাস পেশায় তড়িৎ ও যোগাযোগ প্রকৌশলী। ক্রিকেট ভীষণ পছন্দের। ১৮ মাস ধরে ভিডিও বিশ্লেষকের কাজ করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে। ক্রাইস্টচার্চের মর্মান্তিক ঘটনা নিয়ে নিউজিল্যান্ড থেকে মুঠোফোনে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে এ কথা বলেন তিনি। অলৌকিকভাবে বেঁচে গেছেন। ‘কী ঘটতে পারত, তা ভাবতেই ভয় লাগছে। আমরা অল্পের জন্য নির্বিচারে হত্যার শিকার হওয়া থেকে বেঁচে গেছি। আমি কিংবা দলের যেকেউ এর শিকার হতে পারতাম…জানি না কে বাঁচিয়েছে। এটা অলৌকিক ব্যাপার। নিজেদের ভাগ্যবান মনে হচ্ছে।’

ক্রাইস্টচার্চে কাল এক মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় ৪৯ জন মারা গেছে। অল্পের জন্য বেঁচে গেছে বাংলাদেশ দল। হ্যাগলি ওভাল মাঠের কাছেই যে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন খেলোয়াড়রা, সেই মসজিদেই সন্ত্রাসী হামলা হয়। বাংলাদেশ দলের বাস আর পাঁচ মিনিট আগে মসজিদে পৌঁছে গেলে সন্ত্রাসী হামলার সময় তাঁরা মসজিদের ভেতরেই থাকতেন। শ্রীনিবাস বলেন, ‘বর্বরোচিত ঘটনা। জীবনে কখনো এমন কিছু দেখিনি। চাই না কারও সঙ্গে ঘটুক। অবাক লাগছে এটা ঘটেছে নিউজিল্যান্ডে! অনেক জায়গার চেয়ে যেখানটা আমরা নিরাপদ বলে মনে করি।’

সন্ত্রাসী হামলার পর সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট বাতিল ঘোষণা করা হয়। বাংলাদেশ সময় আজ শনিবার ভোর পাঁচটায় সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসে করে দলের ১৯ সদস্য দেশের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। শ্রীনিবাস যাবেন হায়দরাবাদে, যোগ দেবেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের সঙ্গে। তাঁর বাবা-মা ভারতে থাকলেও বোন থাকেন অস্ট্রেলিয়ায়। পরিবারকে তিনি এই ঘটনা জানিয়েছেন সকালের দিকে, ‘সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে ফোনে খারাপ খবরটি জানাই। আসলে ভালো খবর, কারণ বেঁচে আছি তো!’