‘ওদের প্রতিবাদ দেখে আনন্দে চোখ ভিজে গেছে’

0
92
ছবি: হানিফ সংকেতের ফেসবুক থেকে সংগৃহীত
ছবি: হানিফ সংকেতের ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

‘কিন্তু দুভার্গ্যজনক হলেও সত্যি, এগুলো সবার মনের কথা হলেও আমাদের দেশের কিছু তথাকথিত বুদ্ধিজীবীর মুখের কথা হয়নি।’

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে নিরাপদ সড়কের দাবিতে টানা চার দিন ধরে চলছে ছাত্র বিক্ষোভ। শুরুটা হয়েছে গত রবিবার। ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার মধ্য দিয়ে। আর এ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পাশে সমব্যথী হয়েছেন তারকা-অভিনয়শিল্পী, নির্মাতারাও। কেউ কেউ সরাসরি আন্দোলনে গিয়ে শরিক হয়েছেন। অনেককে দেখা গেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পক্ষে নিরাপদ সড়কের দাবিতে সোচ্চার হতে। এ বিষয়ে বাংলাদেশের বিনোদন অঙ্গনের অন্যতম জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেত তার মতামত তুলে ধরেছেন।

২ আগস্ট, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার কিছুটা পরে তার ফেসবুক পেজ থেকে এ বিষয়ে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ শিরোনামে লেখাটি পোস্ট করা হয়েছে। হানিফ সংকেতের দেওয়া ওই পোস্টটি প্রিয়.কমের পাঠকদের জন্য হুবুহু তুলে ধরা হল।

‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’

‘এ সপ্তাহে রাজপথে শিশু-কিশোরদের মুখে উচ্চারিত একটি আলোচিত স্লোগান। যা সবারই মনের কথা। এইসব নিয়মিত অনিয়ম, অসঙ্গতি, রাস্তার নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় প্রায়ই আমি বিভিন্ন মাধ্যমে তুলে ধরতে চেষ্টা করেছি।

কিন্তু দুভার্গ্যজনক হলেও সত্যি, এগুলো সবার মনের কথা হলেও আমাদের দেশের কিছু তথাকথিত বুদ্ধিজীবীর মুখের কথা হয়নি। এরা তাদের দলীয় স্বার্থে সুবিধা আদায়ের লক্ষ্যে বিভিন্ন বিষয়ে পত্রপত্রিকায় বিবৃতি দেন। টকশোতে কথার খই ফোটান।

কিন্তু এই বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেও কখনো বৃষ্টিতে ভিজে, কখনো প্রখর রৌদে দাঁড়িয়ে আমাদের সন্তানতুল্য শিক্ষার্থীরা যখন জীবনের নিরাপত্তা, স্বাভাবিক মৃত্যুর নিশ্চয়তা আর ন্যায় বিচারের দাবিতে রাজপথে সোচ্চার-তখন এইসব তথাকথিত বুদ্ধিজীবী, দলীয় সাংবাদিকরা অজ্ঞাত কারণে নিশ্চুপ।

এই শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আমাদের অনেকেরই অনেক কিছু শেখার আছে। ওদের প্রতিবাদ দেখে আনন্দে-আবেগে চোখ ভিজে গেছে। আর কোনো হতাশা নয়। ওরাই আমাদের সোনালী ভবিষ্যৎ। আমি নিশ্চিত ওদের হাতেই গড়ে উঠবে আগামী দিনের সুস্থ, সুন্দর, ব্যাধিমুক্ত বিশ্ব সেরা বাংলাদেশ।’

এ দিকে ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় নিহত শিক্ষার্থী দিয়া খানম মিম ও আবদুল করিমের পরিবারকে ২০ লাখ টাকা করে সরকারের পক্ষ থেকে পারিবারিক সঞ্চয়পত্র প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে এ সঞ্চয়পত্র তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY