কেউ কেউ তো আমাকে বিএনপির কর্মী বানিয়ে ফেলেছিলেন : মৌসুমী

40

সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। এর পরই তাকে নিয়ে নানা মহলে গুঞ্জন ওঠে, তিনি নাকি জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক সংগঠনের (জাসাস) নেত্রী ছিলেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিএফডিসি’র প্রযোজক সমিতিতে এক সংবাদ সম্মেলনে সেই গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন মৌসুমী।
সংবাদ সম্মেলনে জনপ্রিয় এই নায়িকা বলেন, ‘নানা মানুষ নানা কথা বলবে, এটাই স্বাভাবিক। কেউ কেউ তো আমাকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) কর্মীই বানিয়ে ফেলেছিলেন। তাদের উদ্দেশ্যে বলব, আমি কোনো দল করি না। তবে মনেপ্রাণে আওয়ামী লীগকে সমর্থন করে আসছি। আমি দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। সে ভাবনা থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছি, এর বেশি কিছু না।’
আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন ফরম কেনা প্রসঙ্গে মৌসুমী বলেন, ‘নারী আসনে মনোনয়ন ফরম কেনার পেছনে মূল কারণ হলো প্রধানমন্ত্রী এক বক্তব্যে বলেছিলেন,তিনি যোগ্য লোককে যোগ্য জায়গায় দেবেন। তার কথা শুনে নারী আসনে মনোনয়নপত্র কেনার প্রতি আগ্রহ বেড়েছে। যেহেতু নারী ও শিশুদের নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছি,তাই এ বিষয়ে আমার যথেষ্ট অভিজ্ঞতা আছে। তাছাড়া আমি নিজেও একজন নারী। তাই আমি মনে করি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি আমাকে এ কাজে যোগ্য মনে করেন,তবে আমি দায়িত্বের সঙ্গে কাজটি করতে পারবো।’
‘চলচ্চিত্র ও রাজনীতিকে কখনো আলাদা করে দেখিনি’ মন্তব্য করে মৌসুমী বলেন, দুটোর লাইফস্টাইল ঠিক একই রকম। চলচ্চিত্রে যেমন দর্শকদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে হয় এবং তাদের পছন্দ ও ভালোলাগার জন্য কাজ করতে হয়, রাজনীতিবিদের বেলায়ও সেটি ঠিক একই রকম। এ ছাড়াও এমন অনেকেই আছেন, যারা রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। কিন্তু রাজনীতিতে এসে অনেক ভালো করেছেন।
এদিকে, মৌসুমীকে নিয়ে চলা সমালোচনার কড়া জবাব দেন তার স্বামী চিত্রনায়ক ওমর সানী। মৌসুমীর সংবাদ সম্মেলনের আগে দুপুরে সাংবাদিকদের ওমর সানী বলেন,‘মৌসুমী জাসাসের প্রোগ্রামে গিয়েছিল। রাষ্ট্র ক্ষমতায় বিএনপি ছিল, জাসাসের আমন্ত্রণে গিয়ে দেখে সেখানে তারেক রহমান। কিন্তু কোনো আমন্ত্রণে যাওয়া মানেই কিন্তু সেই দলের সদস্য হয়ে যাওয়া নয়। আমি চ্যালেঞ্জ করলাম, পৃথিবীর কেউ যদি প্রমাণ করতে পারে মৌসুমী জাসাস করতো তাহলে আমি প্রকাশ্য রাস্তায় দাঁড়িয়ে সকলের কাছে হাতজোড় করে মাফ চাইবো।’
এর আগে বুধবার দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন মৌসুমী। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সেদিন মৌসুমী বলেছিলেন, ‘দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে আমি আমার অভিনয় দিয়ে দেশের জন্য,দেশের মানুষের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করছি। এখন জীবনের পরিণত সময়ে রাজনীতির মাধ্যমে দেশ এবং দেশের মানুষের সেবা করতে চাই। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এরই মধ্যে মন্ত্রিসভার ঘোষণা দিয়ে চমক সৃষ্টি করেছেন। আমার বিশ্বাস, সংরক্ষিত নারী আসনের মনোনয়নেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে চমক দেখাবেন।’