প্রবাসী শিল্পীদের পরিবেশনায় মুগ্ধ দর্শক-শ্রোতা : শিক্ষাবিদ ড. আজিজুল ইসলামকে সম্মাননা বর্ণাঢ্য আয়োজনে নিউইয়র্কে ভাওয়াইয়া রজনী

50

বাংলাদেশ ডেস্ক: সঙ্গীত ভুবনে ভাওয়াইয়া গান এক অমৃত সঙ্গীত ধারা। যার পরশে মানুষের হৃদয়ে প্রশান্তির দোলা বয়ে দেয়। এই দোলায়িত ভাওইয়া গান নিয়ে অনুষ্ঠিত হলো ভাওয়াইয়া রজনী ‘ওকি গাড়ীয়াল ভাই’ শিরোনামে এক মনোমুগ্ধকর সঙ্গীতানুষ্ঠান। টিভি সাংবাদিক শিবলী সাদিক এর সাবলিন উপস্থাপনায় ২৭ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টায় পালকি পার্টি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। ভাওয়াইয়া রজনীর শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করেন প্রবাসের বিশিষ্ট চিকিৎসক শিক্ষা অনুরাগী ডা. রেহানা জামান।
অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী বক্তব্যে ডা. রেহানা জামান বলেন, ভাওয়াইয়ার তীর্থভূমি বৃহত্তর রংপুরের সৈয়দপুরে আমার জন্ম। তাই নাড়ীর টানে আমি ভাওয়াইয়া রজনীতে এসেছি। আজ আমি গর্ববোধ করছি বাংলাদেশ এর গন্ডি পেরিয়ে আটলান্টিকের এ পারে ভাওয়াইয়া গানের আসর বসেছে যা আমাদের ঐতিহ্যের বহিঃপ্রকাশ। আমি আয়োজক সংগঠকন বৃহত্তর রংপুর জনকল্যাণ সমিতিকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।
অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ড. আজিজুল ইসলামকে সম্মাননা জানানো হয়। এসময় ড. আজিজুল ইসলাম ও তার সহধর্মিনী লিলু সাকিনা ইসলামকে ফুল দিয়ে বরণ করেন প্রবাসী উত্তর বঙ্গের শিল্পীবৃন্দ এবং উত্তরীয় পরিয়ে দেন শাহনাজ পারুল ও ডা. নার্গিস রহমান।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথি ডা. মোহাম্মদ হামিদুজ্জামান, গেষ্ট অব অনার মোহাম্মদ এন মজুমদার, এনওয়াই ইন্সুরেন্স এর প্রেসিডেন্ট ও সিইও শাহ নেওয়াজ, বাংলাদেশ সোসাইটির আসন্ন নির্বাচনে সভাপতি পদপ্রার্থী জয়নাল আবেদীন, কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট ইঞ্জিনিয়ার আঃ খালেক, ঠাকুরগাঁও সমিতির সভাপতি ডা. চৌধুরী সারোয়ারুল হাসান, রংপুর জেলা এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. নাফিসুর রহমান পিপুল, মুক্তিযোদ্ধা মশিউর রহমান, সৌখিন নাট্য গোষ্ঠীর প্রেসিডেন্ট খাইরুল ইসলাম খোকন, আবু তালেব চৌধুরী চান্দু প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে উপমহাদেশের জননন্দিত কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন আয়োজনকে স্বাগত জানিয়ে ভাওয়াইয়া গানের ইতিহাস-ঐতিহ্য দর্শকদের মাঝে তুলে ধরেন এবং দর্শকদের বিশেষ অনুরোধে গান পরিবেশন করেন।
ভাওয়াইয়া রজনী ‘ওকি গাড়ীয়াল ভাই’ আয়োজনের প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন আয়োজক কমিটির কর্ণধার বাংলাদেশ জাতীয় ভাওয়াইয়া উৎসব-২০০৭ এর স্বর্ণপদক প্রাপ্ত সংগঠক নূর ইসলাম বর্ষন। তিনি ঘোষণা দেন আগামী ২০১৯ সালে নিউইয়র্কে দু’দিন ব্যাপী ভাওয়াইয়া উৎসব উদযাপন করা হবে।
‘ঘাড়ে গামছা, পরনে লুঙ্গি, আর দোতরা বাজিয়ে’ গানে গানে রজনীর সূচনা ঘটান ভাওয়াইয়ার উদীয়মান তারকা শাহ মাহবুব। সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিলন কুমার রায়-এর পরিচালনায় এবং মোহর খানের তত্বাবধানে অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন ভাওয়াইয়া গানের প্রাণপুরুষ, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রেরর শিল্পী রথীন্দ্রনাথের সুযোগ্য কন্যা চন্দ্রা রায়, মিলন কুমার রায়, রানো নেওয়াজ, ডা. নার্গিস রহমান, মোহর খান, গৌতম রায়, শাহনাজ পারুল, সত্যকী বিশ্বাস, রুনা রায়, জয়া রহমান, কাজল, জেবা রহমান, আফজাল ও কামরুজ্জামান বকুল। দৃষ্টি হরণ নৃত্য পরিবেশন করেন নীলা ড্যান্স এর শিল্পীবৃন্দ। ভাওয়াইয়ার মোহিত সুরের ইন্দ্রজালে বিভোর হয়ে হলভর্তি দর্শক মধ্যরাত পর্যন্ত অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন। ভাওয়াইয়া রজনীতে উপস্থিত থেকে আয়োজনকে সহযোগিতা করেন সঙ্গীত গুরু তপন বৈদ্য, শাহ নেওয়াজ, জহিরুল ইসলাম টুকু, বিপুল সরকার, নুরুল আমিন, সামসুদ্দিন আজাদ, শোটাইম মিউজিক এর কর্ণধার আলমগীর খান আলম, সোনিয়া, মিষ্টি বর্মন, মঞ্জুরুল রহমান, তুহিন, জগদীশ চন্দ্র বর্মন, আব্দুল কাদের, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহেদ আলী মন্ডল, বাবু, জুলিয়েট গোমেজ, নুপুর, পর্ণা প্রমুখ।