ভাগ্য এবার বদলাবে লিভারপুলের?

0
26

গতকাল চেলসিকে ২-০ গোলে হারিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জয়ের পথে ভালোভাবেই আছে লিভারপুল। হাতে আছে আরও ৪ ম্যাচ। কাগজে-কলমে তেমন কঠিন কোনো প্রতিপক্ষ নেই সামনে। এই ‘সহজ’ প্রতিপক্ষদের বিপক্ষে হেরে টেরে না বসলে সমর্থকেরা স্বপ্ন দেখতেই পারে।
ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুল আর ম্যানচেস্টার সিটির মধ্যে জোর লড়াই চলছে। একবার লিভারপুল শীর্ষে উঠছে তো পরের দিনই তাদের টপকে শীর্ষে চলে যাচ্ছে ম্যানচেস্টার সিটি। গতকাল পর্যন্ত লিভারপুল লিগে ৩৪টি খেলা খেলে ফেলেছে। সিটি খেলেছে ৩৩টি। ফলে গতকালই চেলসিকে ২-০ গোলে হারিয়ে শীর্ষে উঠে যাওয়া লিভারপুলকে টপকে সিটির আবারও শীর্ষে ওঠার সম্ভাবনা ব্যাপক। লিভারপুলের হাতে আছে চারটি ম্যাচ। এই চারটি ম্যাচে জয়ের পাশাপাশি সিটি যেন হোঁচট খায় সে প্রার্থনাও জরুরি হয়ে পড়েছে সালাহ-মানেদের। লিভারপুল কি বাকি ম্যাচ গুলি জিততে পারবে? সমর্থকদের উৎকণ্ঠা এখন এটি নিয়েই।

শেষবার লিভারপুল লিগ জয়ের একদম কাছাকাছি পৌঁছেছিল সেই ২০১৩-১৪ মৌসুমে। লিগটা শেষমেশ জিততে পারেনি দুটি ম্যাচের কারণে। একটি ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ ছিল চেলসি, আরেক ম্যাচে প্রতিপক্ষ ছিল ক্রিস্টাল প্যালেস। চেলসির সঙ্গে নিজেদের মাঠে ম্যাচটা হেরে যাওয়ায় সেবার লিভারপুলের শিরোপাস্বপ্নে বড়সড় আঘাত লাগে। আর শিরোপার স্বপ্ন একদম উবে যায় ক্রিস্টাল প্যালেসের মতো ‘পুঁচকে’ এক দলের সঙ্গে ড্র করে। শেষ মুহূর্তে গোল খেয়ে শিরোপাস্বপ্ন জলাঞ্জলি দিয়েছিল তারা। ম্যাচ শেষে লিভারপুলের অধিনায়ক স্টিভেন জেরার্ডকে জড়িয়ে ধরে দলের উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজের কান্নার ছবিটা লিভারপুল সমর্থকদের এখনো কষ্ট দেয়। ফলে কাল চেলসিকে ২-০ গোলে হারালেও, বাকি চার ম্যাচে সেবারের মতো লিভারপুল যে হেরে বসবে না, সেটি বলা যাচ্ছে না।

লিভারপুলের একটা স্বস্তি অবশ্য আছে। শেষ চার ম্যাচের কোনোটাই তথাকথিত ‘বিগ সিক্স’ বা বড় দলগুলোর বিপক্ষে নয়। শেষ চার ম্যাচে লিভারপুলের প্রতিপক্ষ কার্ডিফ সিটি, হাডার্সফিল্ড টাউন, নিউক্যাসল ইউনাইটেড ও উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স। এর মধ্যে হাডার্সফিল্ড ও উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে ঘরের মাঠে খেলবে তারা। আর কার্ডিফ ও নিউক্যাসলের বিপক্ষে খেলতে যেতে হবে প্রতিপক্ষের মাঠে।

হাডার্সফিল্ড এর মধ্যেই প্রিমিয়ার লিগ থেকে অবনমিত হয়ে গেছে। লিগের সবচেয়ে তলানির দল তারা। হেরেছে শেষ পাঁচ ম্যাচের প্রত্যেকটিতে। প্রথম ম্যাচে মোহাম্মদ সালাহর গোলে হাডার্সফিল্ডকে হারিয়েছিল লিভারপুল। এদিকে নিজেদের অবনমন এড়ানোর জন্য প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কার্ডিফ সিটি। শেষ পাঁচ ম্যাচের চারটিতেই হেরেছে তারা। কার্ডিফের কোচ নিল ওয়ার্নক এমনিতেই লিভারপুলকে পছন্দ করেন না। কয়েক দিন আগে ঘোষণা দিয়েছেন, লিভারপুলের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে সর্বশক্তি দিয়ে লড়বে কার্ডিফ। সব মিলিয়ে বলা যায়, এই ম্যাচটা বেশ ভোগাতে পারে সালাহ-মানে-ফিরমিনোদের। যদিও আগের ম্যাচে সালাহ, মানে ও শাকিরির গোলে ৪-১ এ কার্ডিফকে হারিয়েছিল তারা।

নিল ওয়ার্নকের সঙ্গে লিভারপুলের সম্পর্ক যেমন, ঠিক তার উল্টো সম্পর্ক রাফা বেনিতেজের সঙ্গে। ‘অল রেড’দের সাবেক এই কোচকে এখনো লিভারপুলের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে দেখা যায়। সেই রাফা বেনিতেজের বর্তমান দল নিউক্যাসলের বিপক্ষে আরেকটা ম্যাচ খেলবে লিভারপুল, নিজেদের মাঠে। অবনমনের লড়াইয়ে আছে তারাও। প্রিয় দলের বিপক্ষে কেমন ছক আঁটবেন বেনিতেজ? আগের ম্যাচে নিউক্যাসলকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল লিভারপুল।

লিভারপুলের সর্বশেষ ম্যাচ উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে, নিজেদের মাঠে। এই মৌসুমে এর মধ্যেই নিজেদের ‘জায়ান্ট কিলার’ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে উলভারহ্যাম্পটন। লিগে ড্র করেছে লেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, আর্সেনাল ও চেলসির বিপক্ষে। জিতেছে চেলসি, টটেনহাম, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, লেস্টার সিটির বিপক্ষে। এফএ কাপে লিভারপুলকে বিদায় দিয়ে দিয়েছিল এই উলভসই। ফলে লিভারপুলকে শঙ্কায় রাখছে এই ম্যাচটাও।

এই চার দলের মধ্যে এবার ক্রিস্টাল প্যালেসের ভূমিকা নেবে কোন দল? নাকি চার প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিয়ে শিরোপার দিকে বীরদর্পে এগিয়ে যাবে লিভারপুল? জানার জন্য অপেক্ষা করতে হবে মৌসুমের একেবারে শেষ পর্যন্ত।