ভেনিজুয়েলায় যুদ্ধের দামামা

12

ভেঙে পড়ার অবস্থায় থাকা সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র ভেনিজুয়েলায় যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক ত্রাণ পৌঁছানো নিয়ে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো ও পশ্চিমা সমর্থিত স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুইদোর মধ্যকার চলমান সংকট নতুন মোড় নিয়েছে। সীমান্তে জীবন রক্ষায় প্রয়োজনীয় আন্তর্জাতিক মানবিক সহায়তা আটকে দেওয়ার ঘটনায় উত্তেজনা বেড়েছে। ওয়াশিংটন পোস্ট।
হুয়ান গুইদোকে সমর্থন জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, কলম্বিয়া, কানাডা ও অন্যান্য দেশের পাঠানো প্রায় ছয় কোটি ডলার মূল্যের ত্রাণ সহযোগিতা ভেনিজুয়েলায় প্রবেশ করতে না দেওয়ার ব্যাপারে মাদুরো দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এমনকি কলম্বিয়া সীমান্তের কুকুতা সেতু দিয়ে প্রবেশ করার জন্য সাতটি ট্রাক ত্রাণ পৌঁছানোর পরও মাদুরো সমর্থকরা জানিয়েছেন, প্রয়োজনে শক্তি প্রয়োগ করে এসব প্রবেশ রুখে দেওয়া হবে।
যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভেনিজুয়েলাবিষয়ক বিশেষ দূত এলিয়ট আব্রামস জানিয়েছেন, ভেনিজুয়েলার জনগণের জন্য ত্রাণ পাঠানোর বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও বিরোধীদের সমর্থকরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হলেও এ ক্ষেত্রে শক্তি প্রয়োগ করবে না। তিনি বলেন, ‘ভেনিজুয়েলা সীমান্তে আমরা ত্রাণ পাঠাব। আমাদের আশা থাকবে কিছু পরিমাণ ত্রাণ দেশটিতে প্রবেশ করতে পারবে। আমি মনে করি না যে, আমরা বা ব্রাজিলিয়ান কিংবা কলম্বিয়ানরা জোরপূর্বক ত্রাণ প্রবেশ করানোর চেষ্টা করবে।’
গত মে মাসে বিরোধীদের বর্জনের মধ্যে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জয়ী হয়ে চলতি মাসে দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নেন মাদুরো।
নির্বাচনে ভোট জালিয়াতির অভিযোগে মাদুরোবিরোধী এক বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ২৩ জানুয়ারি নিজেকে ভেনিজুয়েলার ‘অন্তবর্তী প্রেসিডেন্ট’ দাবি করেন হুয়ান গুইদো।