শাকিবের সঙ্গে দ্বন্দ্ব গেল মিটে

0
297
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে জায়েদ খান, ওমর সানি ও শাকিব খান।
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে জায়েদ খান, ওমর সানি ও শাকিব খান।

আট মাস পর এফডিসিতে এলেন দেশের চলচ্চিত্রের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। শুধু তা-ই নয়, তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে এলেন, সেখানে বসেছেন, সবার সঙ্গে কথা বলেছেন, কুশল বিনিময় করেছেন। দূর হলো অনেক শঙ্কা, সব অনিশ্চয়তা, নানা ভুল বোঝাবুঝির। দীর্ঘদিন পর এফডিসিতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে উপস্থিত সবার মুখে ছিল হাসি। আজ শুক্রবার বিকেলে কোনো পূর্বঘোষণা ছাড়াই ঘটে গেল ঘটনাগুলো। অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না যে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয় থেকে সব ঘটনার শুরু হয়েছিল, আজ সেখানেই তার ইতি টানা হলো।

এফডিসিতে আজ বিকেলে উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘আমি নেতা হব’ ছবির শুটিং করবেন শাকিব খান। এ খবর পেয়ে সাপ্তাহিক ছুটির দিন এফডিসিতে ছুটে আসেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক জায়েদ খান। তিনি শুটিং ফ্লোরে ছুটে যান এবং শাকিব খানকে সব ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটাতে অনুরোধ করেন। তিনি শাকিব খান আর ওমর সানিকে সঙ্গে করে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে নিয়ে আসেন।

আজ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে সভাপতির চেয়ারে বসে শাকিব খান সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার জন্য আহ্বান জানান। বললেন, ‘চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচাতে হবে। আমাদের ইন্ডাস্ট্রির আজ করুণ অবস্থা। কাজ নেই। অনেকেই বেকার। অনেক দিন পর আজ এফডিসিতে নতুন ছবির কাজ হচ্ছে। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ ঘটাতে হবে। মানসম্মত কাজ কীভাবে বাড়ানো যায়, সেদিকে খেয়াল করতে হবে। সেই লক্ষ্যে সবাইকে চেষ্টা করতে হবে।’

এ সময় এখানে আরও উপস্থিত ছিলেন চিত্রনায়ক ওমর সানি। তিনি বলেন, ‘নায়করাজ রাজ্জাক এই সংগঠন গড়েছিলেন। তাঁর স্মৃতি যথাযথভাবে সংরক্ষণ করতে হবে। তাঁকে যেন সম্মান জানানো হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।’

শুটিং ফ্লোর থেকে সবার সঙ্গে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে যান শাকিব খান।
শুটিং ফ্লোর থেকে সবার সঙ্গে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে যান শাকিব খান।

জায়েদ খান ঘোষণা করেন, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাবেক সভাপতি শাকিব খানকে সংগঠনটির উপদেষ্টা করা হবে। বরেণ্য আরও কয়েকজন শিল্পীকেও উপদেষ্টা করার পরিকল্পনার কথা জানান তিনি। আগামী দিনে তাঁদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ নিয়ে সংগঠনটি পরিচালনা করা হবে।

নিজের ভুলত্রুটির জন্য দুঃখ প্রকাশ করে জায়েদ খান বলেন, ‘এখন হানাহানি করে, চেয়ার নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করে ইন্ডাস্ট্রি বাঁচানো যাবে না। এখন কাজ করে ইন্ডাস্ট্রিকে এগিয়ে নিতে হবে। শাকিব খান বাংলাদেশের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির শুভেচ্ছাদূত। আমরা তাঁকে নিয়ে গর্ব করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি কাউকে নিষিদ্ধ করেনি। এটা শিল্পীদের প্ল্যাটফর্ম।’

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শাকিব খানের সঙ্গে বর্তমান কমিটির দূরত্ব তৈরি হয়। এরপর শাকিব খানের বিভিন্ন মন্তব্যের কারণে চলচ্চিত্র-সংশ্লিষ্ট ১৮টি সংগঠন নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিবার তাঁর সঙ্গে কাজ না করার জন্য সবাইকে আহ্বান জানায়। সম্প্রতি বিভিন্ন মহলের হস্তক্ষেপে এই সংকট নিরসন হয়। ধারণা করা হচ্ছে, আজ শুক্রবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে শাকিব খানের আসার মধ্য দিয়ে তা চূড়ান্ত রূপ পেল।

LEAVE A REPLY