আমার মতো কোনো প্রেসিডেন্ট বাজে আচরণ পায়নি : ট্রাম্প

0
32

আমার মতো কোনো প্রেসিডেন্ট বাজে আচরণ পায়নি বলে দুঃখ প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, ইতিহাসে তার মতো কোনো প্রেসিডেন্ট এতোটা বাজে কিংবা অন্যায্য বিচারের মুখোমুখি হয়নি।

কানেক্টিকাটে  কোস্ট গার্ড অ্যাকাডেমির ক্যাডেটদের পাস আউট অনুষ্ঠানে এমন কথা বলেন তিনি।

ট্রাম্প বলেন, বিশেষ করে গণমাধ্যম সর্বশেষ আমার সঙ্গে কী ধরনের আচরণ করেছে তা দেখুন। আমি সুনিশ্চিতভাবেই বলছি, ইতিহাসে কোনো প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এমন বাজে আচরণ করা হয়নি।

এফবিআইয়ের পরিচালক জেমস কোমিকে বরখাস্তের পর চলতি সপ্তাহে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে একের পর এক বিস্ফোরক সংবাদ প্রকাশ হতে শুরু করে। খবর বের হয়, রাশিয়ার সঙ্গে প্রাক্তন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনের গোপন যোগসাজশের বিষয়ে তদন্ত বন্ধ করতে  জেমস কোমিকে নির্দেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প । হোয়াইট হাউজের ওভাল অফিসে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গে বৈঠকে ট্রাম্প ইসলামিক স্টেট (আইএস) সম্পর্কিত অত্যন্ত গোপন তথ্য প্রকাশ করেছেন।

শুরু থেকেই গণমাধ্যমের চূড়ান্ত তাচ্ছিল্য ও নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি; বড়, মাঝারি, ছোট মাপের বহু বিচিত্র জরিপ; গণকদের ভবিষ্যদ্বাণীকে অসার প্রতিপন্ন করে বিশ্বকে বিস্মিত করে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন রিপাবলিকান দলের প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।

আমেরিকার ইতিহাসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হওয়াকে বড় ধরনের অঘটন বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। রাজনীতির সঙ্গে সম্পর্কচ্যুত প্রায় অচেনা ধনকুবের ট্রাম্প তার পুরো প্রচা অভিযানে অশোভন, অশালীন ভাষায় ভয়ঙ্করভাবে প্রতিপক্ষকে আক্রমণ করলেও প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর বিজয় সম্ভাষণ ছিল সংযত, সাবলীল। তিনি মুসলমানদের বিতাড়নের কথা একবারও বলেননি।

নিউইয়র্কের রিয়েল এস্টেট টাইকুন ফ্রেডরিক ট্রাম্পের পাঁচ সন্তানের মধ্যে চতুর্থ ডোনাল্ড ট্রাম্প। ১৯৪৬ সালের ১৪ জুন কুইন্সে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ধনীর ঘরে জন্ম নিলেও ছোটবেলায় বাবার প্রতিষ্ঠানে সর্বনিম্নস্তরে কাজ করে অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। ছেলেবেলা থেকেই পরিচিতি পান উদ্যমী আর আগ্রাসী হিসেবে।

স্কুলে ডানপিটে থাকায় ১৩ বছর বয়সে তাকে পাঠানো হয় সামরিক একাডেমিতে। সেখানে উদীয়মান অ্যাথলেট ও ছাত্রনেতা হিসেবে নজর কাড়েন তিনি। ১৯৬৪ সালে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে ভর্তি হন ফোর্ডহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয়ে। দু’বছর পর ট্রান্সফার হন পেনসিলভানিয়া ইউনিভার্সিটির হোয়ারটন স্কুল অব ফাইন্যান্সে। ১৯৬৮ সালে সেখান থেকেই অর্থনীতিতে ডিগ্রি নেন তিনি।

ট্রাম্প এ পর্যন্ত বিয়ে করেছেন তিনবার। বর্তমান স্ত্রী ও হবু ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া নউসের সঙ্গে তার বিয়ে হয় ২০০৫ সালে। সেই বিয়ের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে এসেছিলেন হিলারি ও তার স্বামী বিল ক্লিনটন। তার সংসারে তিন ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে।

ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার স্বপ্নের কথা প্রথম বলেন ১৯৮৭ সালে। ১৯৯৯ সালে শুরু হয় তার চেষ্টা। ২০০৮ সালে বারাক ওবামা প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর ‘বার্থার’ আন্দোলনের জনপ্রিয় মুখপাত্রে পরিণত হন তিনি। গত বছরের জুনে ট্রাম্প রিপাবলিকান দলের প্রার্থিতা চেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার মনোনয়ন দৌড়ে শামিল হন। এরপর বাকিটা
ইতিহাস।

LEAVE A REPLY