গুগলের ১ নম্বর শত্রু!

0
87

চার বছরের কম সময়ে হয়েছিলেন গুগলের ‘তারকা’ প্রকৌশলী। এরপরই তিনি হয়ে গেলেন ১ নম্বর শত্রু! গুগলের স্বয়ংক্রিয় গাড়ি প্রকল্পে ২০১৩ সালে যোগ দেন অ্যান্থনি লেভানডস্কি। ৬ ফুট ৭ ইঞ্চি লম্বা ও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ এক প্রকৌশলী হিসেবে তাঁকে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল নিউ ইয়র্কার। সার্চইঞ্জিনের এক অসম্ভব প্রকল্পকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার চেষ্টায় ছিলেন তিনি।

কিন্তু চার বছর না যেতেই তিনি গুগলের ১ নম্বর শত্রু এখন। কিন্তু কেন?

গত বৃহস্পতিবার গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট ইনকরপোরেশনের স্বয়ংক্রিয় গাড়ির বিভাগ ওয়েমোর পক্ষ থেকে লেভানডস্কির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, লেভানডস্কি অ্যালফাবেটে কাজ ছেড়ে দেওয়ার সময় সেখান থেকে মূল্যবান মেধাস্বত্ব চুরি করে তাঁর বর্তমান প্রতিষ্ঠান উবার টেকনোলজিস ইনকরপোরেশনকে দিয়েছেন।

২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে অ্যালফাবেট ছেড়ে আসার আগে তাঁর কার্যক্রম পর্যালোচনার করে ওয়েমো ওই অভিযোগ করেছে। ওয়েমোর দাবি, লেভানডস্কির ওয়েব সার্চ, ডাউনলোড ও এক্সটার্নাল ড্রাইভ যুক্ত করার বিষয়টির ডিজিটাল প্রমাণ রয়ে গেছে।

অ্যালফাবেটের ওয়েমো ও উবারের মধ্যে ম্যাপিং, স্বয়ংক্রিয় গাড়ির মতো বিষয়গুলো নিয়ে শত্রুতা বাড়ছে। এর কেন্দ্রে চলে এসেছেন লেভানডস্কি।

লেভানডস্কি তাঁর ক্যারিয়ারজুড়ে একটি স্বপ্ন বাস্তবায়নের পেছনে ছুটেছেন। তাঁর স্বপ্ন হচ্ছে, রোবটচালিত গাড়ি রাস্তায় চালানো। বার্কলের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় থেকেই তিনি ২০০৪ ডারপা গ্র্যান্ড চ্যালেঞ্জ নামের একটি স্বয়ংক্রিয় মোটরসাইকেল তৈরির প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে শুরু করেন।

স্বয়ংক্রিয় গাড়িতে ব্যবহৃত লেজার প্রযুক্তি তৈরির প্রতিষ্ঠান ৫১০ সিস্টেম শুরু করেন তিনি। ২০০৭ সালে গুগলে ঢুকে স্ট্রিট ভিউ প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত হন। গাড়িতে ব্যবহৃত ম্যাপিং হার্ডওয়্যার তৈরির কাজ করেন তিনি। পরে গুগলের গোপন গাড়ি প্রকল্পে যুক্ত হন। তবে লেভানডস্কির পরিচিতজনেরা বলেন, গুগলে কাজ করার পাশাপাশি গোপনে নিজের ৫১০ সিস্টেমস নিয়ে কাজ চালিয়ে যেতে থাকেন। পরে গুগল তাঁর ওই স্টার্টআপ অধিগ্রহণ করে।

এর কয়েক বছর পর গুগলে কাজ করতে করতে আবারও গোপনে নিজের আরেকটি স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠা করেন লেভানডস্কি। অটো নামের ওই প্রতিষ্ঠানটি গত বছরের আগস্টে ৬৮ কোটি মার্কিন ডলারে কিনে নেয় উবার।

ওয়েমোর করা মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, লেভানডস্কি তাঁর করপোরেট ল্যাপটপে ২০১৫ সালে বিশেষ সফটওয়্যার ইনস্টল করে লিডার প্রযুক্তির ১৪ হাজার স্পর্শকাতর ফাইল ডাউনলোড করেছেন। এ ফাইলগুলো স্বয়ংক্রিয় গাড়ি চালানোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ওয়েমোর ডিজাইন সার্ভারে ঢোকার প্রাণপণ চেষ্টা করে তাঁর কার্যক্রম লুকানোর চেষ্টা করেছেন লেভানডস্কি।

অভিযোগ রয়েছে, ২০১৬ সালের ১৪ জানুয়ারি তিনি উবারের অফিসে যান এবং পরের দিন অটো নামের কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। দুই সপ্তাহ পর কোনো নোটিশ ছাড়াই তিনি অ্যালফাবেটে চাকরি ছেড়ে দেন।

অ্যালফাবেটের গাড়ির ইউনিট থেকে বেশ কয়েকজন কর্মী চাকরি ছাড়ার পর এই মামলা করা হলো। বেশ কয়েক বছর ধরে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি প্রযুক্তি তৈরিতে কাজ করলেও এখনো বাণিজ্যিকভাবে কোনো গাড়ি বাজারে ছাড়েনি প্রতিষ্ঠানটি।

ব্লুমবার্গ নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অ্যালফাবেট থেকে চাকরি ছাড়ার পেছনে আরও কয়েকটি কারণ আছে। এর মধ্যে আছে চাকরির শর্ত। যাঁরা প্রথম দিককার কর্মী তাঁরা চাকরি ছাড়লে বড় অঙ্কের বোনাস পান। ওয়েমোর মামলার এজাহারে বলা হয়, গুগল থেকে কয়েক মিলিয়ন ডলার অর্থ গ্রহণ শেষ করার পরে অটোকে অধিগ্রহণ করার ঘোষণা দেয় উবার।

উবারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অটো ও উবারের কর্মীদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ রয়েছে তা গুরুত্ব সহকারে নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি যত্নসহকারে পর্যালোচনা করা হবে।

গত বছর ফোর্বসকে বলেছিলেন, ‘আমরা গুগলের কোনো আইপি চুরি করিনি। আমরা নিশ্চিত করে বলতে চাই, আমরা বিষয়টি নিয়ে পরিষ্কার। আমরা একেবারে শূন্য থেকে শুরু করেছি। পরিষ্কার থাকতে আমাদের সব লগ রাখা হয়।’

জুলাই মাসে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি তৈরির প্রচেষ্টায় লেভানডস্কিকে শীর্ষ পর্যায়ে রাখে উবার। পরের মাসেই এ ক্ষেত্রে তাঁদের যাত্রার ঘোষণা দেয়।

উবারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টারভিস কালানিক অটোকে অধিগ্রহণের সময় লেভানডস্কি সম্পর্কে বলেছিলেন, ‘আমার মনে হয় লেভানডস্কি আমার আরেক মায়ের পেটের ভাই।’

LEAVE A REPLY