বাংলাদেশের স্পিন নিয়ে ছক কষছে অস্ট্রেলিয়া

0
105
বাংলাদেশের স্পিন-সহায়ক কন্ডিশনে ভালো করার ছক কষছেন ড্যারেন লেম্যান। ছবি: রয়টার্স
বাংলাদেশের স্পিন-সহায়ক কন্ডিশনে ভালো করার ছক কষছেন ড্যারেন লেম্যান। ছবি: রয়টার্স

বাংলাদেশ অভিযানের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। আজ থেকে ডারউইনে শুরু হয়েছে এক সপ্তাহের প্রস্তুতি ক্যাম্প। বাংলাদেশের পরিবেশের আবহ পেতেই ডারউইনের এই ক্যাম্প। অস্ট্রেলিয়ার উত্তরের এই শহরের আবহাওয়া অনেকটাই বাংলাদেশের মতো। বোঝাই যাচ্ছে, বাংলাদেশের স্পিন-সহায়ক উইকেটের ভাবনাটা মাথায় রেখেছেন স্মিথ-ওয়ার্নাররা।
চ্যাম্পিয়নস ট্রফির পর একটি লম্বা বিরতিই গেছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে। বিরতির একটা বড় কারণ বেতন-ভাতা নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে খেলোয়াড়দের দ্বন্দ্ব। এটি আরও বাড়তে পারত যদি বেতন-ভাতা নিয়ে ঝামেলাটা গত সপ্তাহে না মিটত। সমস্যাটা যেহেতু মিটে গেছে, অস্ট্রেলিয়ার চোখ এখন মাঠের খেলাতেই। মাঝে পাওয়া বিরতিটা বরং ইতিবাচক দৃষ্টিতেই দেখছেন অস্ট্রেলিয়া কোচ ড্যারেন লেম্যান, ‘খেলোয়াড়দের অনেকের জন্য বিরতিটা ভালো হয়েছে। লম্বা একটা মৌসুম গেছে তাদের। এই সময়ে অনেক সফর করেছে। এমন চনমনে হওয়াটা তাই গুরুত্বপূর্ণ। আবারও ক্রিকেটে ফেরায় তারা রোমাঞ্চিত।’
গত অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে স্পিন-সহায়ক উইকেটে সাফল্য পাওয়ার পর স্মিথদের সঙ্গেও বাংলাদেশ যে একই উইকেট তৈরি করবে, সেটি মোটামুটি নিশ্চিত। কিছুদিন ধরে বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের কথায় অন্তত সেটিই বোঝা গেছে। বাংলাদেশ যদি স্পিনের মায়াজাল ছড়িয়ে স্মিথদের আটকানোর ছক কষে, সেটি সামলানোর কৌশল বের করছে অস্ট্রেলিয়াও।
লেম্যানের কথায় তো সেটিই বোঝা গেল, ‘বাংলাদেশে যে ধরনের উইকেট পাব, অনেকটা সেই ধরনের উইকেট তৈরি করেছে এনটিসিএ (নর্দার্ন টেরিটরি ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন)। নিচু, মন্থর, উইকেটে বল ঘুরবে। সেখানে তিনটি উইকেট আছে অনেকটা ঢাকার মতো (যেখানে প্রথম টেস্ট শুরু ২৭ আগস্ট), তিনটি আছে চট্টগ্রামের মতো (দ্বিতীয় টেস্ট শুরু ৪ সেপ্টেম্বর)। আর মাঝ উইকেটে আমরা একটা (দুদিনের প্রস্তুতি) ম্যাচ খেলতে পারব এবং ফিল্ডিং নিয়ে কাজ করতে পারব। যে কন্ডিশন, তাপমাত্রা ও আর্দ্রতায় আমরা বাংলাদেশে খেলব, সেটি বিবেচনা করে দুর্দান্ত প্রস্তুতিই হবে এখানে।’
গত তিন বছরে ভারত-পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা—উপমহাদেশের তিনটি দলের কাছে ধবলধোলাইয়ের অভিজ্ঞতা থেকে এ বছরের শুরুতে ভারত সফরের আগে দুবাইয়ে প্রস্তুতি ক্যাম্প করেছিল অস্ট্রেলিয়া। সেটির উপকারিতাও তারা পেয়েছে। এবার বাংলাদেশ সফরের আগেও একই পথে হেঁটেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)।
ডারউইন-পর্ব শেষে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে আসবে ১৮ আগস্ট। বাংলাদেশের কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে প্রথম টেস্টের আগে পাওয়া আট-নয় দিন নিশ্চয়ই কাজে লাগানোর চেষ্টা করবে লেম্যানের দল। সূত্র: ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

LEAVE A REPLY