‘ব্যাটসম্যানরা কখনো হ্যাপি হতে পারে না’

0
113
টেকনিক নিয়ে কাজ করছেন সাব্বির রহমান।
টেকনিক নিয়ে কাজ করছেন সাব্বির রহমান।

অস্ট্রেলিয়া সিরিজের আগে চট্টগ্রামে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন-পর্বটা কেমন হলো? বোলারদের কাছে উত্তরটা নিশ্চয়ই ‘ভালো’ পাওয়া যাবে। ব্যাটসম্যানদের কাছে অবশ্য বিপরীত উত্তর পাওয়া যেতে পারে। নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে খেলা তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের আজ শেষ দিন যদিও ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। তবে প্রথম দুদিন যতটুকু খেলা হয়েছে, তাতে ব্যাটসম্যানদের তুলনায় বোলারদের মুখেই বেশি হাসি থাকবে।

মুশফিকুর রহিমের লাল দল ৯ উইকেটে ১৪০ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণার পর তামিম ইকবালের সবুজ দল অলআউট হয়েছে ২৮৩ রান। নাজমুল হোসেন, মুমিনুল হক, নাসির হোসেন ও তানভীর হায়দার ফিফটি পেলেও দুদিনে ১৯ উইকেট তুলে নিয়ে বোলারদের সাফল্যের পাল্লাটাই ভারী। তবে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতাকে বড় করে দেখতে চাইছেন না সাব্বির রহমান, ‘ব্যাটসম্যানরা কখনো হ্যাপি হতে পারে না। ব্যাটসম্যানরা যত রান করবে, ততই মনে করবে আরও বেশি রান যদি করতে পারতাম! এখানে যে অনুশীলন করতে এসেছি, সেটি ৮০ শতাংশ হয়েছে। ২০ শতাংশ হয়নি বৃষ্টির কারণে। সেটা তো আমাদের হাতে নেই।’
মূলত আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিতি সাব্বিরের। কিন্তু অতি আক্রমণাত্মক হওয়ায় কম মূল্য দিতে হয়নি তাঁর। ব্যাটিং নিয়ে তাই সাব্বিরের উপলব্ধি, ‘সব সময় আক্রমণ করা যাবে না। পরিস্থিতি অনুযায়ী আক্রমণ করতে হবে। গিয়েই আক্রমণাত্মক হলে হবে না। বুঝতে হবে উইকেট কেমন, প্রতিপক্ষের বোলার, পরিকল্পনা কেমন—সবকিছু বুঝেই খেলতে হবে। যেহেতু আমি আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান, যেভাবে আগে খেলে আসছি, সেভাবে খেলব।’
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রায় তিন বছর পার করে দেওয়া সাব্বির এখনো দেখা পাননি তিন অঙ্কের। ইদানীং তাঁর ধারাবাহিকতা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। সাব্বির জানালেন, ব্যাটিংয়ে আরও ভালো করতে টেকনিক নিয়ে কিছু কাজ করছেন তিনি, ‘ব্যাক লিফট নিয়ে কাজ করছি। সামনে-পেছনে থ্রো ডাউন নিয়ে কাজ করছি। থ্রো ডাউনটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সামনের বা পেছনের বলে কীভাবে মানিয়ে নেওয়া যায়, কীভাবে ছাড়তে হয়, কীভাবে ধৈর্য ধরতে হয়।’

LEAVE A REPLY