এবারের দলবদলে জিতল কোন দল?

0
117
ইতিহাসের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় হয়েছেন নেইমার। ছবি এএফপি।
ইতিহাসের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় হয়েছেন নেইমার। ছবি এএফপি।

এই গ্রীষ্মে আর কুতিনহোকে পাওয়া হলো না বার্সেলোনার। শুক্রবার দলবদলের শেষ দিনে নীরব ছিল স্প্যানিশ দৈত্যরা। দলবদলের প্রায় পুরোটা সময় এই ব্রাজিলিয়ান প্লে-মেকারকে কেনার ব্যর্থ চেষ্টা করেছে বার্সা। ডেমবেলে, পাউলিনহো, দেউলোফেউ আর সেমেদোতেই শেষ হয়েছে তাঁদের দলবদল অভিযান। ইউরোপের অন্য সব লিগে খেলোয়াড় কেনা-বেচার ‘জানালা’য় কপাট পড়েছিল এক দিন আগেই। গতকাল শুধু লা লিগা দলগুলোই খেলোয়াড় কিনেছে। দলবদলের শেষে হাসল কারা, কোন দল ভুগেছে সবচেয়ে বেশি আর কোন দল সাজিয়ে নিয়েছে নিজেদের—জেনে নেওয়া যাক এই ফাঁকে

দলবদলে সবচেয়ে বড় চমক দিয়েছে সাবেক লিগ ওয়ান চ্যাম্পিয়ন পিএসজি। রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরোতে ব্রাজিল অধিনায়ক নেইমারকে দলে নিয়েছে তারা। এর পরের দানটা মেরেছে রিয়াল মাদ্রিদকে। পুরো মৌসুম ধরে পেছনে ছুটে বেড়ানো লা লিগা চ্যাম্পিয়নদের হতাশ করে ফরাসি বিস্ময় বালক কিলিয়ান এমবাপ্পে শেষমেশ গিয়েছেন পিএসজিতেই। বোঝাই যায় ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের অভিযানে আছে দলটি। এই গ্রীষ্মেই বার্সা-রিয়ালের পাশাপাশি নতুন ফুটবল পরাশক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে প্যারিসের দলটি। এক দলবদলের মৌসুমেই বার্সা, রিয়াল—দুই দলকেই আঘাত করা! তবে মাঠের লড়াইয়েই নিশ্চিত হবে কোনো একক ক্লাবের শ্রেষ্ঠত্ব।

পিএসজিকে টপকে ইউরোপজুড়ে সবচেয়ে খরচে ক্রেতা অবশ্য হয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। বেঞ্জামিন মেন্ডি, কাইল ওয়াকার, দানিলো, এডারসন, বার্নার্ডো সিলভা ও ডগলাস লুইজকে কিনেছে ক্লাবটি, মোট খরচ করেছে ২২১.৫ মিলিয়ন ইউরো। যদিও শেষ দিনে আর্সেনালের দ্বিধার মুখে পড়ে কেনা হয়নি ফরোয়ার্ড অ্যালেক্সিজ সানচেজকে। আসছে শীতেই দলে তাঁকে দলে নেবার অঙ্গীকার জানিয়েছে তারা।

কম যায়নি নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। রোমেলু লুকাকু, নেমানিয়া ম্যাটিচ, ভিকটর লিন্ডেলফ যোগ দিয়েছেন পগবা, মেখেতারিয়ানদের দলে। ফলও পেতে শুরু করেছে, লিগের ১ নম্বর স্থান দখলে নিয়েছে রেড ডেভিলরা। ওদিকে নতুন মালিক ফরহাদ মোশিরির অধীনে এভারটন দলে নিয়েছে গিলফি সিগুর্ডসন, ওয়েইন রুনি, ডেভি ক্লাসেন, ও জর্ডান পিকফোর্ডের মতো পরীক্ষিত সৈনিকদের। রোনাল্ড ক্যোমানের হাত ধরে শীর্ষ চারে জায়গা চাইছে এভারটন।

নেইমারের শূন্যস্থান পূরণে বার্সায় এসেছেন ডেম্বেলে। ছবি এএফপি।
নেইমারের শূন্যস্থান পূরণে বার্সায় এসেছেন ডেম্বেলে। ছবি এএফপি।

শেষ দিনে ড্যানি ড্রিংকওয়াটার আর ডেভিড যাপ্পাকস্তাকে দলে টেনেছে বর্তমান ইংলিশ চ্যাম্পিয়ন চেলসি। তবে দুশ্চিন্তায় আছেন কন্তে। চেলসিতে যেতে নারাজ ছিলেন লুকাকু, ফার্নান্দো ইয়োরেন্তে ও রস বার্কলি। এখনো না খেললেও শেষ পর্যন্ত দল পাননি ডিয়েগো কস্তা। সুযোগ বুঝে চেলসির প্রিমিয়ার লিগ রোস্টারে আবারও ফিরেছেন স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড।

ইতালিতে অবশেষে ঘুম ভেঙেছে এসি মিলানের। গ্রীষ্মজুড়েই দলে নিয়েছে চালহানুগ্লু, বনুচ্চি, বিলিয়া, ডোনারুমার মতো তারকাদের। জুভেন্টাস দলে নিয়েছে মাতুইদি ও মাহদি বেনাতিয়াকে। গত কয়েক মৌসুমের ঘুম ধরানো সিরি আ’তে এবার হয়তো প্রতিযোগিতার আঁচ পাওয়া যাবে।

নেইমার চলে যাওয়ার পর হন্যে হয়ে বিকল্প খেলোয়াড় খুঁজেছে বার্সেলোনা। রাডারে ছিলেন দুজন, ওউসমান ডেমবেলে আর ফিলিপে কুতিনহো। প্রথম জন দলে এসেছেন ১৪৩.৫ মিলিয়ন ইউরোয়, এখনো পর্যন্ত দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ট্রান্সফার ফিতে। আসছে মৌসুমেই যেটি এমবাপ্পের বদৌলতে নেমে যাবে তিনে। কিন্তু ৭২ মিলিয়নের প্রস্তাব বাড়িয়ে ১৫০ মিলিয়ন করলেও দলে আনতে পারেনি কুতিনহোকে। তোতাপাখির মতো বুলি আউড়েছেন লিভারপুল বস ইয়ুর্গেন ক্লপ, ‘কুতিনহো বিক্রির জন্য নয়।’ ওদিকে পিএসজি নেইমারকে কিনলেও বার্সায় যেতে দেয়নি অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া ও মার্কো ভেরাত্তিকে। জুভেন্টাসও ছাড়েনি পাওলো দিবালাকে।

বর্তমান ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন রিয়ালের জন্য অস্বাভাবিক এক গ্রীষ্ম কেটেছে। তারকা খেলোয়াড় কাউকেই দলে নেয়নি, উল্টো চেলসিতে বিক্রি করেছে ফরোয়ার্ড আলভারো মোরাতাকে। ‘লস ব্লাঙ্কো’দের দলে ভিরেছেন থিও হার্নান্দেজ ও সেবায়োস। ধারে বায়ার্ন মিউনিখে খেলতে গেছেন হামেস রদ্রিগেজ।

এ ছাড়াও আর্সেনাল ছেড়ে লিভারপুলে গিয়েছেন অ্যালেক্স অক্সলেড চেম্বারলেইন, তাঁর সঙ্গে যোগ দিয়েছেন রোমা ছেড়ে আসা মোহামেদ সালাহ। অলিম্পিক লিঁও ছেড়ে ক্লাব রেকর্ড করে আর্সেনালে এসেছেন ফরোয়ার্ড অ্যালেক্সান্দ্রে লাকাজেতে। সূত্র: গোল, ইএসপিএন এফসি।

LEAVE A REPLY