সাকিবকে দ্বিতীয় টেস্টেই খেলাতে চেয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি

0
99
আজ দক্ষিণ আফ্রিকায় রওনা দেওয়ার পথে সাকিব, সঙ্গী নাসির।
আজ দক্ষিণ আফ্রিকায় রওনা দেওয়ার পথে সাকিব, সঙ্গী নাসির।

মাশরাফি-সাকিবরা যখন দক্ষিণ আফ্রিকার বিমান ধরতে বিমানবন্দরে, সেখানে ছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানও। মাশরাফিদের বিদায় জানানো এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভ্যর্থনা জানাতেই বিসিবি সভাপতির বিমানবন্দরে যাওয়া। সেখানেই একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে নাজমুল বলেন, তিনি ব্লুমফন্টেইন টেস্টে খেলাতে চেয়েছিলেন সাকিব আল হাসানকে।

টানা ক্রিকেটের ক্লান্তি জেঁকে বসায় টেস্ট থেকে ছয় মাসের ছুটি চেয়েছিলেন সাকিব। কিন্তু বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের ছুটিটা বিসিবি মঞ্জুর করেছে শুধু দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট সিরিজের জন্য। সাকিবের অনুপস্থিতিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় এখনো ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। বোঝার ওপর শাকের আঁটি হিসেবে যোগ হয়েছে তামিম ইকবালের চোট।
প্রথম টেস্টে ৩৩৩ রানে হারের পর বাংলাদেশ কাঁপছে দ্বিতীয় টেস্টেও। সাকিব-তামিমের মতো দুজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ের শূন্যতা স্বাভাবিকভাবেই অনুভব করছেন নাজমুল, ‘সাকিব ছয় মাসের ছুটি চেয়েছিল। সেটা তাকে দেওয়া হয়নি। আসলে ওকে আমরা এই টেস্টেই পাঠাতাম। পরশু সন্ধ্যায় শুনেছি তামিম চোটে পড়েছে, খেলতে পারবে না। যদি এক দিন আগে বা ওই দিন সকালেও যদি শুনতাম, সাকিবকে আমরা দ্বিতীয় টেস্টে খেলাতাম।’
প্রথম টেস্টের মতো এই টেস্টেও টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশ টেস্ট অধিনায়কের এই সিদ্ধান্ত যে পছন্দ হয়নি, সেটি বোঝা গেল নাজমুলের কথায়, ‘এ ধরনের পিচে ব্যাটিং না নেওয়ার যুক্তিই হতে পারে না। এটা একমাত্র মুশফিকই ভালো বলতে পারবে। খেলার মাঝে কিছু বললে খামাখা সে নার্ভাস হয়ে যাবে। ওকে তাই কিছু বলিনি। তবে কথা হয়েছে ওর সঙ্গে। ভেবেছিলাম দ্বিতীয় টেস্টে টস জিতলে ব্যাটিং নেবে। গতকাল সে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেটা সত্যি অবাক হওয়ার মতো। ওখানে তারা যেটা দেখছে, সেটা তো আমরা বাইরে থেকে বুঝতে পারি না। হয়তো কিছু একটা ছিল।

LEAVE A REPLY