স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বাংলাদেশের সুন্দরবন এলাকার ইউনেস্কো সংরক্ষিত পার্ক-এ শিশু দাস ক্যাম্প আবিষ্কৃত।

0
551
স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বাংলাদেশের সুন্দরবন এলাকার ইউনেস্কো সংরক্ষিত পার্ক-এ শিশু দাস ক্যাম্প আবিষ্কৃত।
স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বাংলাদেশের সুন্দরবন এলাকার ইউনেস্কো সংরক্ষিত পার্ক-এ শিশু দাস ক্যাম্প আবিষ্কৃত।

স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বাংলাদেশের সুন্দরবন এলাকার ইউনেস্কো সংরক্ষিত পার্ক-এ শিশু দাস ক্যাম্প আবিষ্কৃত।
ক্যারা ম্যাকগোএ্যান এবং মুকতাদির রশিদ ঢাকা:বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমে বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী সুন্দরবন এলাকায় স্যাটেলাইটের মাধ্যমে প্রায় ৫টি ক্যাম্পে ১০০ জনেরও বেশী শিশু দাস হিসেবে অবৈধভাবে কাজ করার অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।
ইতোমধ্যে সুন্দরবন জাতীয় উদ্যানে দুটি মাছ প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানায় সর্বনিম্ব নয় বছরের শিশু সহ অন্যান্য অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশুদের দিয়ে বিরতিহীন ৪০ ঘন্টা পর্যন্ত জোড়পূর্বক কাজ করানো হচ্ছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।
নটিংহ্যাম ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক কেভীন বেইলস গুগোল আর্থএর স্যাটেলাইট প্রযুক্তি ব্যবহার করে এ ধরনের ৫টি ক্যাম্প-এর অস্তিত্ব খুজে পান যেখানে শুটকি মাছ এবং পোষা প্রাণীদের খাদ্য প্রক্রিয়াজাত করার কাজে অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশুদের দাস হিসেবে কাজ করতে বাধ্য করা হয়।
অধ্যাপক বেইল টেলিগ্রাফ সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ১৩৩০ স্কয়ার কিলোমিটার আয়তনের এই সুন্দরবন জাতীয় উদ্যানের স্যাটেলাইটের মাধ্যমে তোলা ঐতিহাসিক ছবি গুলো থেকে জানা যায় এই সকল ক্যাম্পে প্রতিনিয়ত শিশুরা অসুখ বিসুখে মারা যায় এমন কি তারা বাঘের খাদ্যের শিকার হয়।
স্যাটেলাইট থেকে গৃহিত ছবিতে দেখা যায় দেখতে ভবনআকৃতির হলেও এগুলো উচুঁ তাক যেখানে শিশু শ্রমিকদের আটকে রেখে কাজ করতে বাধ্য করা হয়।
জাতিসংঘের ইউনেস্কো কর্তৃক সুন্দরবনের তিনটি স্থান বিশ্বের ঐতিহাসিক দর্শনস্থান হিসেবে স্বীকৃত। এ ব্যাপারে ইউনেস্কো কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি তবে স্থানীয় সরকারের কর্মকর্তাগণ এ সংরক্ষিত এলাকার দায়িত্বে নিয়োজিত বলে জানিয়েছে।
বনরক্ষক জহির উদ্দিন আহমেদ জানান জোড়পূর্বক শিশুশ্রমের অভিযোগ সম্পর্কে তিনি অভিহিত নন। তবে শুটকি প্রক্রিয়াজাতকরণ বছরের নির্দিষ্ট কয়েকটি মাসের মধ্যে সীমাবদ্ধ।
বাগের হাটের জেলা পুলিশ প্রধান পঙ্কজ চন্দ্র রায় জানান সম্প্রতি তোলা স্যাটেলাইটের ছবি গুলি সম্পর্কে তিনি কিছু জানেন না। তবে সুন্দরবন এলাকায় কিছু মাছ প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানা আছে বলে তিনি স্বীকার করেন। তবে শিশুদের পিতামাতার কাছ থেকে এ ধরনের কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে ক্যাম্পগুলোর ভেতর তদন্ত করে দেখা হবে।
অধ্যাপক বেইল মাছ প্রক্রিয়াজাত করণ কারখানা গুলোতে অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশুদের জোড়পূর্বক কাজে নিয়োগের স্বপক্ষে জোড়ালো প্রমাণ আছে বলে দাবী করেন। তিনি আরও বলেন ৯ থেকে ১৪ বছরের এ সকল শিশুরা খোলা আকাশের নীচে ঘুমায় এবং খুব কম খাবার দেয়া হয় এবং তাদের প্রতি যৌনহয়রানী মূলক আচরণ করা হয়।
২০১৩ এবং ২০১৪ সালে স্থাপিত দুটি ক্যাম্প থেকে পালিয়ে আসা ৯ টি শিশুর কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য পাওয়া গেছে বলে বেইল দাবী করেন।
অধ্যাপক বেইল আগামীকাল মঙ্গলবার পার্লামেন্টে তার গঠিত তথ্য ও উপাত্ত উপস্থাপন করবেন। তিনি সারা বিশ্বে মানবাধিকার লঙ্ঘনের মত কাজ গুলো পর্যবেক্ষণ করার কাজে স্যাটেলাইটকে আরও শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে সহযোগিতা আশা করেন।

স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বাংলাদেশের সুন্দরবন এলাকার ইউনেস্কো সংরক্ষিত পার্ক-এ শিশু দাস ক্যাম্প আবিষ্কৃত।
স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বাংলাদেশের সুন্দরবন এলাকার ইউনেস্কো সংরক্ষিত পার্ক-এ শিশু দাস ক্যাম্প আবিষ্কৃত।

LEAVE A REPLY