শুধু মর্যাদা প্রতিষ্ঠা নয়, নারীদের মহিয়ান করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা : নাসিম

0
51
আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম
আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুধু নারীদের মর্যাদা প্রতিষ্ঠাই করেননি নারীদের মহিয়ানও করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা বিশ্বের নারীদের মর্যাদা বৃদ্ধি করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কন্যার নেতৃত্বে নারীর মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় জাতি জয়ী হবেই।
মোহাম্মদ নাসিম আজ দুপুরে রাজধানীর শিশু একাডেমীর মুক্তমঞ্চে সমকাল সুহৃদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
স্বপ্ন সাহস অঙ্গিকারে ‘মর্যাদায় গড়ি সমতা, বন্ধ করি নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সকল সহিংসতা’ শীর্ষক এ সমাবেশের আয়োজন করে জাতীয় দৈনিক সমকাল।
মর্যাদায় গড়ি সমতা প্রচারাভিযানের আওতায় মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন, ইউকেএইড, মাত্রার সহযোগিতায় সমকাল এ সমাবেশের আয়োজন করে।
সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশের উদ্ধোধন করেন ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।
সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কবি কাজী রোজী এমপি, বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, কবি হেলাল হাফিজ, নারী নেত্রী আয়শা খানম, শারমীন মুরশিদ, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও অভিনেতা আফজাল হোসেন ও সমকালের ফিচার সম্পাদক মাহবুব আজিজ।
এছাড়াও সমাবেশে সাহিত্যিক, সাংবাদিক, সঙ্গীত শিল্পী, অভিনেতা ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্বরা উপস্থিত ছিলেন।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, দেশের প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলীয় নেত্রী ও জাতীয় সংসদের স্পীকার নারী। নারীরা যেমন সেনাবাহিনী, পুলিশসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করছে তেমনি গার্মেন্টেসে কাজ করার মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করছে।
তিনি বলেন, যে সময় নারীরা হিমালয় জয় করছে সে সময় নারীরা সহিংসতার শিকার হবে তা কখনো মেনে নেয়া যায় না। নারী ও কন্যাশিশুর সহিংসতার বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে।
নাসিম বলেন, দেশের নারীরা ফিছিয়ে নেই। তাহলে কেন তারা সহিংসতার শিকার হবে ? নারী ও কন্যাশিশুর ওপর সহিংসতার বিরুদ্ধে আইন রয়েছে। সচেতনতা ও ইচ্ছার অভাবে তা বাস্তবায়িত হয় না। সচেতনতা আর ইচ্ছা থাকলে নারী ও কন্যাশিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।
গোলাম সারওয়ার বলেন, রাজধানীসহ সারা দেশে নারী ও কন্যা শিশুদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সহিংসতার শিকার হয় গৃহকর্মী নারী ও কন্যা শিশুরা। তারা আবার সবচেয়ে বেশি সহিংসতার শিকার হন নারীদের হাতে।
তিনি গৃহকর্মী নারী ও কন্যা শিশুদের প্রতি সহিংসতা না করার জন্য সকল নারী ও পুরুষের প্রতি আহবান জানান।
শাহীন আনাম বলেন, নারীর সম্মান ও মর্যাদা পুরুষের চেয়ে এখনো কম। সংসারে ও সমাজে নারীর সম্মান ও মর্যাদা বৃদ্ধি করলে নারীর প্রতি সহিংসতা কমবে।

LEAVE A REPLY