শেষ দানে বাজিমাত?

0
58

প্যারিস ছেড়ে গত জুলাইয়ে ম্যানচেস্টারে আসেন জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। সাপ্তাহিক ২ লাখ পাউন্ড পারিশ্রমিকে ম্যানইউ তাকে এক বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ করে। তখন অনেকেই বলেছিলেন, বিশাল অংকের পারিশ্রমিকে ৩৫ বছর বয়সী ‘বুড়ো ঘোড়া’ ইব্রাকে দলে টেনে ভুল করল ম্যানইউ। সুইডিশ স্ট্রাইকারটি তো বিগত যৌবনা! কিন্তু বছর শেষে দেখা যাচ্ছে, লিওনেল মেসিকে টপকাতে আর মাত্র দুই গোল চাই ইব্রার!
ফ্রেঞ্চ লিগে গত মার্চে ত্রয়েসকে ৯-০ গোলে হারিয়ে আট ম্যাচ হাতে রেখেই শিরোপা নিশ্চিত করে প্যারিস সেন্ট জার্মেই। এ ম্যাচে মাত্র ৯ মিনিটের ব্যবধানে ইব্রার হ্যাটট্রিক লিগ ওয়ানের ইতিহাসে দ্রুততম। কিন্তু ম্যাচ শেষে হ্যাটট্রিকের চেয়েও কম সময়ের ব্যবধানে ইব্রা জানিয়ে দেন, ‘পিএসজিতে এটাই আমার শেষ মৌসুম।’ ফ্রান্সের সেরা ক্লাবটিকে টানা চারবার লিগ জেতানো ইব্রা তখন একটা আবদারও করেছিলেন, ‘প্যারিসে থাকতে পারি, যদি আইফেল টাওয়ারের স্থলে আমার মূর্তি বসাও!’
ফ্রান্সে বেশির ভাগ পর্যটককে চুম্বকের মতো টানে আইফেল টাওয়ার। যেমনটা পিএসজি ভক্তদেরও নিজস্ব ক্যারিশমায় চুম্বকের মতো টেনেছেন ইব্রা। ক্লাবটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনি। প্যারিস ছাড়ার আগেও চলতি বছরের প্রথমার্ধ পর্যন্ত পিএসজিকে ৩৩ গোল উপহার দেন সুইডেনের ইতিহাস সেরা স্ট্রাইকারটি। ম্যানইউতে আসার পর মানিয়ে নিতে সময় নেন কিছুদিন। এর পর যেন সেই পুরনো ইব্রা! এ বছরের শেষার্ধে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ২৬ ম্যাচে রেড ডেভিল স্ট্রাইকারটির গোল সংখ্যা ১৭। গত মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ম্যানইউর সর্বোচ্চ গোলদাতা অ্যান্থনি মার্শালের গোল সংখ্যাও ১৭! অর্থাত্ মৌসুমের অর্ধেক পথেই ইব্রা প্রমাণ করেছেন, ৩৫ বছর বয়সেও সাপ্তাহিক ২ লাখ পাউন্ড পারিশ্রমিক পাওয়ার যোগ্যতা আছে তার।
পিএসজিতে ৩৩ ও ম্যানইউতে ১৭— সব মিলিয়ে এ বছর ইব্রার গোল সংখ্যা ৫০। এ বছর তার চেয়ে বেশি গোল শুধু লিওনেল মেসির। দুজনের ব্যবধান মাত্র ১ গোলের! ৪৮ গোল নিয়ে তৃতীয় লুই সুয়ারেজ, চতুর্থ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সংগ্রহ ৪২ গোল। শনিবার মিডলসব্রোর বিপক্ষে বছরের শেষ ম্যাচ খেলবে ম্যানইউ। এ ম্যাচে আরো দুই গোল চাই ইব্রার। তাহলেই ২০১৬ সালে ইউরোপের শীর্ষস্থানীয় লিগগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ গোলদাতার আসনে ম্যানইউ স্ট্রাইকারটির পেছনে পড়বেন মেসি।
স্প্যানিশ ফুটবলের এখন শীতকালীন ছুটির আমেজ। বার্সেলোনা স্ট্রাইকার মেসির ক্ষণিকের এ অবসর ইব্রার জন্য শাপেবর। কেননা ছুটি শেষে আগামী ৮ জানুয়ারি বার্সার হয়ে নতুন বছরের প্রথম ম্যাচ খেলবেন মেসি। তার আগে আর কোনো ম্যাচ নেই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারটির। অন্যদিকে ইব্রার হাতে রয়েছে আরো এক ম্যাচ। মিডলসব্রোর বিপক্ষে সেই ম্যাচটাই চলতি বছর পার্থক্য গড়ে দিতে পারে কখনো ব্যালন ডি’অর না জেতা ও পাঁচবার ব্যালন ডি’অর জয়ী দুই ফুটবলারের মধ্যে। অবশ্য ফিফা বর্ষসেরা ট্রফির দিয়ে ফুটবলারদের মানদণ্ড নিরিখের অভ্যাস নেই ইব্রার। তিন বছর আগেই তো বলে রেখেছেন, ‘নিজেকে সেরা মানতে আমার ব্যালন ডি’অর জেতার দরকার নেই।’
ক’দিন আগেও বছরের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় সুয়ারেজের পেছনে ছিলেন ইব্রা। কিন্তু ক্রিস্টাল প্যালেস, ওয়েস্ট ব্রমউইচ আলবিওন ও সান্ডারল্যান্ডের জালে লক্ষ্যভেদ করায় তার পেছনে পড়েন উরুগুয়ে স্ট্রাইকারটি। এ মাসে ফ্রান্স ফুটবল ব্যালন ডি’অর জয়ী রোনালদো পর্যন্ত ইব্রার ‘বুড়ো হাড়ের ভেলকি’র সঙ্গে পেরে ওঠেননি। তবে সর্বোচ্চ পাঁচ গোলদাতার তালিকায় ইব্রা একাই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের প্রতিনিধি। ৩৯ গোল নিয়ে পাঁচে রবাট লেভানডভস্কি বুন্দেসলিগার। এছাড়া বাকি তিনজনই স্প্যানিশ লা লিগার— দুজন (মেসি-সুয়ারেজ) বার্সার ও একজন রিয়াল মাদ্রিদের (রোনালদো)।
শীর্ষে দশে ইব্রা ছাড়া ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ থেকে জায়গা পেয়েছেন শুধু সের্জিও আগুয়েরো। ৩৬ গোল নিয়ে ছয়ে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারটি। তার সমান গোল নিয়ে এডিনসন কাভানিও ছয়ে। ৩৩ গোল নিয়ে সাতে ন্যাপোলি স্ট্রাইকার গঞ্জালো হিগুয়াইন। আটে ডর্টমুন্ড স্ট্রাইকার পিয়েরে এমেরিক অবামেয়াংয়ের গোল সংখ্যা ৩২ এবং ৩০ গোল নিয়ে তালিকাটির দশে লিঁও স্ট্রাইকার আলেকজান্দ্রে ল্যাকাজেত্তে। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো, শীর্ষ দশের এ তালিকায় ইব্রাই সবচেয়ে বেশি বয়সী— এই না হলে বুড়ো হাড়ের ভেলকি! মেইল অনলাইন
শীর্ষ ৫ গোলদাতা :
খেলোয়াড় ক্লাব গোল
লিওনেল মেসি বার্সেলোনা ৫১
জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ ম্যানইউ ৫০
লুই সুয়ারেজ বার্সেলোনা ৪৮
রোনালদো রিয়াল মাদ্রিদ ৪২
লেভানডভস্কি বায়ার্ন ৩৯

LEAVE A REPLY