সারাদেশে শীত জেঁকে বসতে শুরু করেছে। মাঘের শুরু থেকে দেশের উত্তরাঞ্চলে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে। অন্যান্য অঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মৃদু থেকে মাঝারি ধরণের শৈত্যপ্রবাহ। দেশব্যাপী শৈত্যপ্রবাহের কারণে রাজধানী ঢাকায়ও এখন বইছে শীতল বাতাস।
বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস বাসস’কে জানান, আজ দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেতুলিয়া ও কুড়িগ্রামের রাজারহাটে, ৫ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স। শুক্রবার এ দু’স্থানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স।
পঞ্চগড় ও কুড়িগ্রাম ছাড়াও আজ টাঙ্গাইলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়ার্স উল্লেখ করে তিনি বলেন, শ্রীমঙ্গল, রাজশাহী, পাবনা, দিনাজপুর, নীলফামারী ও চুয়াডাঙ্গার উপর দিয়েও তীব্র শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।
রুহুল কুদ্দস বলেন, আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে। তবে তাপমাত্রা কতটা বাড়বে তা আগাম বলা যাচ্ছে না। উত্তরাঞ্চলে শৈত্যপ্রবাহের তীব্রতা অব্যাহত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।
তিনি বলেন, বরিশাল বিভাগ এবং ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপলগঞ্জ, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, সীতাকুন্ড, রাঙ্গামাটি, কুমিল্লা, ফেনী, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, রংপুর, সৈয়দপুর, খুলনা, সাতক্ষীরা, যশোর ও কুষ্টিয়া অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারী ধরণের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।
রাজধানীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১ দশমিক ৮ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স উল্লেখ করে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, ঢাকায় শৈত্যপ্রবাহ নয়, শীতল বাতাস বইছে।
তিনি বলেন, তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রী সেলসিয়ার্সের নিচে চলে গেলে তখন তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ, ৮ ডিগ্রীর নিচে গেলে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ ও ৬ ডিগ্রির নিচে গেলে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বলে উল্লেখ করা হয়। সে হিসেবে ঢাকায় এখনও শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়নি।
আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস বলেন, আজ মাদারীপুরে ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স, ময়মনসিংহে ১০ দশমিক ৫ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স, চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে ৯ দশমিক ৬ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স, সিলেটের শ্রীমঙ্গলে ৭ দশমিক ৫ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স, রাজশাহীর ঈশ্বরদীতে ৭ দশমিক ৪ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স, খুলনার চুয়াডাঙ্গায় ৯ দশমিক ২ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স এবং বরিশালে ১০ দশমিক ২ ডিগ্রী সেলসিয়ার্স সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।
তিনি বলেন, রাজধানীসহ সারাদেশেই শীতের তীব্রতা অনুভূত হচ্ছে। কারণ উত্তরী হাওয়ার বেগ বেড়েছে। আরও দুদিন তাপমাত্রা একইরকম থাকতে পারে। বলা যায়, মাঘের প্রথম দিনেই শীতে কাঁপছে দেশ।
এ আবহাওয়াবিদ আরো বলেন, সোম-মঙ্গলবার থেকে তাপমাত্রা বাড়তে পারে। তবে শীতের তীব্রতা থাকবে। আর জানুয়ারির শেষে আবার শৈত্যপ্রবাহ আসতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে হালকা থেকে মাঝারী ধরণের কুয়াশাও অব্যাহত থাকতে পারে বলে তিনি জানান।

LEAVE A REPLY