১৯৪৭ পরবর্তী বাঙালি কবিদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য যে কয়জন কবি নাগরিক জীবন সম্পর্কিত কাব্য নির্মাণে বাংলা কবিতায় নাগরিকতা ও আধুনিকতাবোধের সূচনা করেছিলেন কবি শহীদ কাদরী অন্যতম । নাগরিক জীবনের প্রাত্যহিক অভিজ্ঞতা দিয়েই তিনি তাঁর কাব্য নির্মাণ করেছেন । দেশপ্রেম, অসাম্প্রদায়িকতা, মানবতাবোধ এবং প্রকৃতি ও নগর জীবনের অভিব্যক্তি তাঁর কবিতার ভাব, ভাষা, শব্দ, ছন্দে পাওয়া যায়। তাছাড়া তাঁর কবিতায় অনুভূতির গভীরতা, চিন্তার সুক্ষ্মতা ও রুপগত পরিচর্যার পরিচয় সুস্পষ্ট। বাংলা একাডেমী পুরস্কার ও একুশে পুরষ্কার প্রাপ্ত কবি শহীদ কাদরী গত বছর ২৮ আগস্ট নিউইয়র্কে মারা যান।
সদ্য প্রয়াত এই কবি স্মরণে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের একটি হলে ১৩ জানুয়ারি রবিবার সন্ধ্যায় সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন« অক্ষর » এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত হল “একটি শহীদ কাদরী সন্ধ্যা” । কবির স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন পূর্বক এক মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
আবৃত্তি শিল্পী সাইফুল ইসলামের মনমুগ্ধকর উপস্থাপনায় কবির জীবন ও সাহিত্য কর্মের উপর প্রবন্ধ পাঠ করেন মুহাম্মদ গোলামমোর্শেদ । কবির রচিত বহুল পঠিত ও জনপ্রিয় কবিতাগুলো থেকে পাঠ করেন– বদরুজ্জামান জামান, মুহিত জ্যোতি, প্রকাশ কুমার বিশ্বাস ,ওয়াহিদুজ্জামান , সুমা দাস, মুনির কাদের , মুহাম্মদ গোলাম মোর্শেদ, গিয়াস বাবু , রাহুল চৌধুরী প্রমুখ। তাছাড়া ‘তোমাকে অভিবাদনপ্রিয়তমা’ কবিতাটি গীটারের সাহায্যে নিজস্ব সুরে সংগীত রুপে পরিবেশন করেন প্যারিসের জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী কুমকুম সায়েদা ।
মঞ্চ সজ্জা ও শব্দ নিয়ন্ত্রনের ছিলেন চিত্রশিল্পী মুহিত জ্যোতি এবং পলাশ। সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বহাসনাত জাহান এবং মুনির কাদের।

LEAVE A REPLY