‘এক চীন নীতি’ নিয়ে মার্কিন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ফের করা মন্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীন। তাইওয়ান ইস্যুতে ট্রাম্প ‘আগুন নিয়ে খেলা’ করছেন। গত সোমবার চায়না ডেইলি ট্রাম্পের কথার এভাবেই পাল্টা জবাব দেয়।
সম্প্রতি তাইওয়ানকে নিয়ে ট্রাম্পের ‘মাতামাতিতে’ একের পর এক ভর্ত্সনা আর তিরস্কার বাক্যবাণ করে যাচ্ছে চীনা সরকার ও রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। তারই ধারাবাহিকতায় অতিসম্প্রতি এ প্রতিক্রিয়া দেখালো চায়না ডেইলি।
গত শুক্রবার ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে দেওয়া সাক্ষাত্কারে ট্রাম্প বলেছেন, ‘এক চীন নীতি’ আলোচনা সাপেক্ষ বিষয়। শুধু এ নীতিই নয়, সবকিছুই আলোচনার অধীন। চীনের এই দীর্ঘদিনের নীতির আওতায় যুক্তরাষ্ট্র মনে করে, বেইজিংই সকলকিছুর কলকাঠি নাড়ে। দেশটি তাইওয়ানকে বিচ্ছিন্নতাকামী প্রদেশ হিসেবে ভাবে এবং এর স্বাধীনতাবিরোধী। তবে এ পর্যন্ত প্রায় সব মার্কিন সরকারই তাইওয়ানের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক সম্পর্ক রেখে চলেছে।
এদিকে চায়না ডেইলি এদিন ট্রাম্পের মন্তব্য নিয়ে কঠিন ভাষায় সম্পাদকীয় ছাপে। এটা জানায়, দেশটি অগ্নি নিয়ে খেলতে আরম্ভ করেছে। মার্কিন নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্টের মন্তব্য দেখে মনে হচ্ছে তিনি এক চীন নীতিকে “ট্রাম্প কার্ড” এবং “দর কষাকষির ক্ষেত্র’ হিসেবে ব্যবহার করতে চাইছেন। যদি ট্রাম্প এটাকে ব্যবহার করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হন, তাহলে দুই দেশের সম্পর্কের করুণ অবনতি অনিবার্য। কেননা বেইজিংয়ের কাছে এটি ভিন্ন আর কোনো বিকল্প থাকবে না।
শনিবার চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রীর মুখপাত্র লু ক্যাং বলেন, এ নীতি আলোচনার যোগ্য নয়। চীনা তাইওয়ান বিষয়ক দপ্তরের মুখপাত্র অ্যান ফেংসান বলেন, তাইওয়ান প্রণালীতে শান্তি ও স্থিতিশীলতা আনায়নে যেকোনো ধরনের পরিবর্তন মারাত্মক প্রভাব ফেলবে।

LEAVE A REPLY